আল্লাহ ‘হও’ বললেই যদি সব হয়ে যায়!

তিনি নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলের উদ্ভাবক। যখন তিনি কোন কার্য সম্পাদনের সিন্ধান্ত নেন, তখন সেটিকে একথাই বলেন, ‘হয়ে যাও’ তৎক্ষণাৎ তা হয়ে যায়।সূরা বাকারা-১১৭

অপরদিকে আল্লাহ কুরআনে বিভিন্ন জায়গায় ঘোষনা দিয়েছেন তিনি এ মহাবিশ্ব ছয় দিনে/ পর্যায়ে বা সময়কালে সৃষ্টি করেছেন।

নিশ্চয় তোমাদের প্রতিপালক আল্লাহ। তিনি নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলকে ছয় দিনে সৃষ্টি করেছেন।সূরা আরাফ -৫৪

নিশ্চয়ই তোমাদের পালনকর্তা আল্লাহ যিনি তৈরী করেছেন আসমান ও যমীনকে ছয় দিনে।সূরা ইউনুস -৩

এছাড়াও সূরা হুদের ৭ নং আয়াতে এবং সূরা ফোরকানের ৫৯ নং আয়াতে এ বিষয়টি উল্লেখ আছে।

সৃষ্টি প্রক্রিয়া ধীরে ঘটেছে নাকি হঠাৎ ঘটেছে ? আল্লাহ ‘হও’ বললেই যদি সব হয়ে যায়!

তবে মহাবিশ্ব সৃষ্টি করতে তাঁর ৬ দিন সময় কেন লেগেছিল?

জবাব:
তিনি নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলের উদ্ভাবক। যখন তিনি কোন কার্য সম্পাদনের সিন্ধান্ত নেন, তখন সেটিকে একথাই বলেন, ‘হয়ে যাও’ তৎক্ষণাৎ (ভুল অনুবাদ ‘‍এবং’ হবে-আরবি ‘وَ ‘এর বাংলা প্রতিশব্দ ‘এবং’) তা হয়ে যায়।সূরা বাকারা-১১৭

প্রথমেই যে বিষয়টি আমরা ভুল করে ফেলি সেটা হচ্ছে ‘‘কুন ফায়াকুন’’ ‘‘ হও এবং হয়ে যায়’’ ব্যাপারটিকে মনের অজান্তেই আমরা একটি তড়িৎ পরিবর্তন বা চোখের পলকে ঘটে যাওয়া ব্যাপার হিসেবে ধরে নিয়েছি। এটা চোখের পলকেই হতে হবে এমন কোন বিষয় নয়। সে বিষয়টি আমরা কুরআনের অন্য আরেকটি আয়াতের মাধ্যমে জানতে পারি। ঈসা(আঃ)এর জন্মের বিষয়ে মরিয়ম (আঃ) এবং ফেরেশতাদের কথোপকথনটি আল্লাহ কোরআনে উল্লেখ করেছেন।

তিনি বললেন, পরওয়ারদেগার! কেমন করে আমার সন্তান হবে; আমাকে তো কোন মানুষ স্পর্শ করেনি। বললেন এ ভাবেই আল্লাহ যা ইচ্ছা সৃষ্টি করেন। যখন কোন কাজ করার জন্য ইচ্ছা করেন তখন বলেন যে, ‘হয়ে যাও’ অমনি তা হয়ে যায়। ৩:৪৭

এ আয়াতের ও “কুন ফায়াকুন” ব্যবহার করা হয়েছে। স্পষ্টতঃ এখানে আল্লাহ হঠাৎ করে যীশুর জম্ম হওয়ার কথা বলছেন না, কিংবা আমরা ও হঠাৎ করে যীশুর জম্মের কথা চিন্তা করছিনা। এখানে ‘‘কুন ফায়াকুন ’’ দ্বারা আল্লাহর আদেশ একটি প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন হওয়ার কথা বলা হয়েছে।

অপরদিকে আল্লাহ বলেননি যে হও বলার সাথে সাথে পূর্নকার্য সম্পাদিত হয়ে যায়। বরং উপরের আয়াতগুলো হতে যে ধারণা পাওয়া যায় তা হল-

আল্লাহ “হও” বলার সাথে সাথেই তার নিধারির্ত প্রক্রিয়ার কার্যক্রম শুরু হয়ে যায়, কার্যক্রম শেষ হয় আল্লাহ যেভাবে ঠিক করে দিবেন ঠিক সেভাবেই।

বাকারায় ১১৭ নং আয়াতে এরকম ইংগিতই পাওয়া যায়।
The Originator of the heavens and the earth. When He decrees a matter, He only says to it : “Be!” – and it is.