সূর্যের আবর্তনের কারনে ছায়া পড়ে

কোরআন অনুযায়ী ছায়া পড়ে সূর্যের আবর্তনের কারনে (পৃথিবীর নয়) (২৫:৪৫) ! আসলেই কি তাই ?

জবাব :

আয়াত(২৫:৪৫) এ কোথাও বলা হয়নি যে, ছায়া পড়ে সূর্যের আবর্তনের কারনে (পৃথিবীর নয়)। চলুন আয়াত (২৫:৪৫-৪৬) দেখি-

সুরা ফুরকান ২৫:৪৫ তুমি কি তোমার পালনকর্তাকে দেখ না, তিনি কিভাবে ছায়াকে বিলম্বিত করেন? তিনি ইচ্ছা করলে একে স্থির রাখতে পারতেন। এরপর আমি সূর্যকে করেছি এর নির্দেশক।

সুরা ফুরকান ২৫:৪৬ অতঃপর আমি একে নিজের দিকে ধীরে ধীরে গুটিয়ে আনি।
আয়াত (২৫:৪৫-৪৬) হতে নিম্নলিখিত বিষয়ের অবতারনা করতে পারি-
১। আকাশে সূর্যের অবস্থান ছায়ার দৈর্ঘ্যের একটি নির্দেশক হিসেবে কাজ করে।
২। আয়াতের কোন শব্দ বলে না যে, ছায়া পড়ে সূর্যের আবর্তনের কারনে।
৩। আরবী শব্দ ‘জিল’ (ছায়া) একটি পুংলিঙ্গ আরবি শব্দ। আয়াতের(২৫:৪৬) আরবী শব্দ ‘কাবাদনাহ'( (এটা প্রত্যাহার করা)পুংলিঙ্গ ফর্ম এ ব্যবহার করা হয়েছে যা দিয়ে ছায়াকে বুঝানো হয়েছে, সূর্যকে নয়।

অপরদিকে, আরবী শব্দ ‘শামস'(সুর্য) স্ত্রীলিঙ্গ আরবি শব্দ।যদি ‘শামস'(সূর্য) কে এক্ষেত্রে ব্যবহার করা হতো তাহলে আরবী শব্দটি হতে যেত ‘কাবাদনাহা’ ।

সুতরাং আয়াত (২৫:৪৫-৪৬) এর দাবী অনুসারে, ছায়া পড়ে সূর্যের আবর্তনের কারনে – মিথ্যা প্রমাণিত হয়।

hits