নারীদের নিকাব

“নারীদের নিকাব? উফ্‌! ইসলাম একটি নারী-বিদ্বেষী ধর্ম!”

জবাব:

১মত- মুসলিম হওয়ার জন্য নিকাব পরা কোনো শর্ত নয়।
২য়ত- কুরআন-হাদিসে নারীদেরকে নিকাব পরতে বলা হয়নি। এজন্য সারা বিশ্বের মুসলিম নারীদের অধিকাংশই নিকাব পরিধান করে না। তবে অধিকাংশ মুসলিম নারী শালীন পোশাক-সহ হিজাব/স্কার্ফ পরিধান করে।
৩য়ত- মুসলিম নারীদের ক্ষুদ্র একটা অংশ যেমন বোরকা-নিকাব পরিধান করে, তেমনি মুসলিম পুরুষদের ক্ষুদ্র একটা অংশ জোব্বা-স্কার্ফ পরিধান করে যা বোরকা-নিকাবের খুব কাছাকাছি। ছবিতে দেখুন। সেই দিক থেকে মুসলিম নারী-পুরুষের পোশাকে তেমন কোনো পার্থক্য নেই। অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের নারী-পুরুষের পোশাকের ক্ষেত্রে পার্থক্যটা বেশ প্রকট!
৪র্থ- নিকাব একটি ইসলাম-পূর্ব যুগের প্রথা। মুসলিমরা যেহেতু অন্যান্য ধর্ম থেকে ধর্মান্তরিত হয়েছে সেহেতু তাদের একাংশের মধ্যে আগের প্রথা পালন করার প্রচলন রয়ে গেছে। উদাহরণস্বরূপ, হিন্দু নারীদের একাংশ আজও পর-পুরুষের সামনে গোমটা দিয়ে পুরো চেহারা ঢেকে রাখে। এই প্রথা তাদের বেদ থেকে এসেছে। স্থানীয় কালচারের প্রভাবে ভারতীয় উপমহাদেশের মুসলিম নারীদের মধ্যেও এই গোমটা প্রথা পালন করতে দেখা যায়।